বুধবার, ১৮ মার্চ, ২০১৫

দৈনন্দিন মাসনুন দুয়া

বুধবার, ১৮ মার্চ, ২০১৫
১। ঘুমাতে যাবার সময়ের দোয়া 
অর্থঃ হে আল্লাহ, তোমার নামেই আমি মারা যাই এবং জীবিত হই। 
২। ঘুম থেকে উঠার দোয়া 

অর্থঃ সমস্ত প্রশংসা সে আল্লাহর যিনি আমাকে মৃত্যুর পর আবার জীবিত করেছেন। তাঁর দিকেই আমাদের ফিরে যেতে হবে। 
৩। খাবার শুরু করার আগে দোয়া 

অর্থঃ আল্লাহর নামে তাঁর বরকতের আশায় শুরু করছি 
৪। খাবার শেষে দোয়া 

অর্থঃ সমস্ত প্রসশংসা সেই আল্লাহর যিনি আমাকে খাইয়েছেন, পান করিয়েছেন এবং মুসলমান বানিয়েছেন। 
৫। খাবার শুরুতে দোয়া পড়তে ভুলে গেলে 

অর্থঃ আল্লাহর নামেই শুরু ও শেষ করছি। 
৬। পান করার আগে দোয়া 

অর্থঃ আল্লাহর নামে (পান করছি) 
৭। পান করার পর দোয়া 

অর্থঃ সকল প্রশংসা আল্লাহর জন্যে 
৮। পায়খানায় প্রবেশের দোয়া 

অর্থঃ হে আল্লাহ, আমি নারী ও পুরুষ শয়তান থেকে আশ্রয় চাচ্ছি। 
৯। পায়খানা থেকে বের হবার পর দোয়া 

অর্থঃ হে আল্লাহ, আমি তোমার ক্ষমা প্রার্থনা করছি। 
অথবা
অর্থঃ সমস্ত প্রশংসা আল্লাহর জন্যে, যিনি আমার কষ্ট দূর করেছেন এবং আমাকে স্বস্তি দিয়েছেন। 
১০। বাড়ি থেকে বের হবার দোয়া 


অর্থঃ আল্লাহর নামে রওয়ানা দিচ্ছি, আল্লাহর উপর ভরসা করছি। আল্লাহ ছাড়া কোন ক্ষমতা ও শক্তি নেই। 

 ১১। বাড়িতে প্রবেশের দুয়া
অর্থঃ হে আল্লাহ, আমি তোমার কাছে ভালোভাবে প্রবেশ করার ও ভালোভাবে বের হবার প্রার্থনা করছি। আল্লাহর নামেই আমরা প্রবেশ করি ও বের হই। আমরা আমাদের প্রতিপালক আল্লাহর উপরই ভরসা করি।
১২। মসজিদে প্রবেশের দোয়া

অর্থঃ হে আল্লাহ! আমার জন্যে তোমার রহমতের দরজা খুলে দাও 
 ১৩। মসজিদ থেকে বের হবার দোয়া
অর্থঃ হে আল্লাহ! আমি তোমার অনুগ্রহ প্রার্থনা করছি 

 ১৪। অযুর শুরুতে দোয়াঃ উল্লেখ্য, হাদিসে কোন দোয়া নির্দিষ্ট করা হয়নি, তবে আল্লাহর নামে শুরু করতে তাকিদ দেওয়া হয়েছে।

 অর্থঃ পরম করুণাময় আল্লাহর নামে শুরু করছি
১৫। অযুর সময় দোয়া
অর্থঃ হে আল্লাহ! আমার গুনাহ মাফ করে দাও, আমার কবর প্রশস্ত করে দাও এবং আমার উপার্জনে বরকত দিয়ে দাও। 
১৫। অযু শেষে দোয়া। আকাশের দিকে তাকিয়ে পড়তে হবে। মিশকাত শরিফে বলা হয়েছে, এই দোয়া পড়লে জান্নাতের আটটি দরজাই খুলে যাবে এবং যে কোনো দরজা দিয়ে প্রবেশ করা যাবে। 
অর্থঃ আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি, আল্লাহ ছাড়া কোন উপাস্য নেই, তিনি এক ও একক, তাঁর কোন অংশীদার নেই। আমি আরো সাক্ষ্য দিচ্ছি যে, মুহাম্মাদ সাঃ আল্লাহর বান্দা ও রাসুল। 
অথবা পড়তে হবে এই দোয়া। 

অর্থঃ হে আল্লাহ! তুমি আমাকে তাওবাকারী ও পবিত্রতা অর্জনকারীদের মধ্যে অন্তর্ভূক্ত করো। 
অথবা 
 ১৬। কাপড় পরার দোয়া

অর্থঃ সমস্ত প্রশংসা আল্লাহর জন্যে, যিনি আমাকে কাপড় পরিয়েছেন আমার কোন প্রচেষ্টা বা শক্তি ছাড়াই। 
১৭। ইফতারের শুরুতে দোয়া 
অর্থঃ হে আল্লাহ! আমি তোমারই জন্যে সিয়াম পালন করেছি আর তোমার দেওয়া রিযক থেকেই ইফতার করেছি। 
অথবা নিচের দোয়া 
অর্থঃ হে আল্লাহ! তোমার রহমত সবকিছুকে বেষ্টন করে আছে। তার উসিলায় আমাকে মাফ করে দাও। 
১৮। ইফতারের পরের দোয়া
অর্থঃ পিপাসা চলে গেছে, ধমনীসমূহ সিক্ত হয়েছে এবং আলাহর ইচ্ছায় পুরস্কার নির্ধারিত হয়েছে। 
চলবে......... ইনশা-আল্লাহ 
সূত্রঃ 
[১] মাসনুন দুয়ার বই। 
[২] Search Truth

0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন